ঢাবির ‘গ’ ইউনিটে সিকিভাগও পাস করেনি, তবুও উন্নতি!


Published: 2017-09-19 00:33:22 BdST, Updated: 2017-10-18 11:39:19 BdST

ঢাবি লাইভ : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় এবারও ফল বিপর্যয় হয়েছে। পাস করতে পারেনি ভর্তিচ্ছুদের সিকিভাগও। অধিকাংশ শিক্ষার্থীর ফেলের খাতায় নাম উঠলেও এবারের ফল গতবারের চেয়ে উন্নতি হয়েছে। বেড়েছে পাসের হার। গতবারের তুলনায় এবার পাসের হার অন্তত ১০ শতাংশ বেশি। গত ১৫ সেপ্টেম্বর শুক্রবার ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

জানা গেছে, সোমবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে ভিসি প্রফেসর ড. মো. আখতারুজ্জামান আনুষ্ঠানিকভাবে এ ফল প্রকাশ করেন। প্রকাশিত ফলাফলে দেখা যায় ‘গ’ ইউনিটে ৮৫ দশমিক ২৫ শতাংশ ভর্তিচ্ছু ফেল করেছে। উত্তীর্ণ হয়েছেন ১৪ দশমিক ৭৫ শতাংশ। যদিও গত বছর ‘গ’ ইউনিটে ৫ দশমিক ৫২ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছিলেন।

প্রকাশিত ফলাফলে দেখা যায়, ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ১ হাজার ২৫০টি আসনের বিপরীতে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৪ হাজার ১৬৮ জন, যা শতকরা হারে ১৪ দশমিক ৭৫ ভাগ। এ বছর এ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষার জন্য আবেদনকারীর সংখ্যা ছিল ২৮ হাজার ২৪৮ জন। এর মধ্যে ফেল করা শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৪ হাজার ৮০ জন।

পাস করা শিক্ষার্থীদের মধ্যে (মেধাক্রম ১-১৩০০) শিক্ষার্থীদের আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে ৮ অক্টোবর পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে বিস্তারিত এবং বিষয় পছন্দক্রম ফরম পূরণ করতে বলা হয়েছে।

কোটায় উত্তীর্ণদের ১৯ থেকে ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে বিস্তারিত এবং বিষয় পছন্দক্রম ফরম পূরণ করতে বলা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা ফল নিরীক্ষণের জন্য ১৯ থেকে ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

শিক্ষার্থীরা মোবাইল এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে পরীক্ষার ফল জানতে পারবেন। যেকোনো মোবাইল অপারেটরের মেসেজ অপশনে গিয়ে DU স্পেস GA স্পেস ভর্তি পরীক্ষার রোল নম্বর টাইপ করে ১৬৩২১ নম্বরে পাঠিয়ে ফিরতি এসএমএস এ জানতে পারবেন। এ ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসইট admission.eis.du.ac.bd থেকেও ফলাফল জানতে পারবেন।


ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//জেএন

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।