জাবিতে প্রক্সিদাতা ঢাবি ছাত্রকে ছাড়িয়ে নিতে চায় ওরা কারা!


Published: 2017-10-16 01:38:59 BdST, Updated: 2017-11-20 19:14:28 BdST

জাবি লাইভ : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি দিতে গিয়ে আটক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকে ছাড়িয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টোরিয়াল বডির জিম্মায় থাকাবস্থায় ওই প্রক্সিদাতাকে ছাড়িয়ে নেয়ার তদবির করা হয়। এজন্য আটক ওই ছাত্রকে ছাড়িয়ে নেয়ার আশ্বাসও দেয় জালিয়াত চক্রের সদস্যরা। এঘটনা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

প্রক্টোরিয়াল বডির জিম্মায় থাকাবস্থায় জালিয়াত চক্রের সদস্যরা কিভাবে সেখানে গেলেন এনিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত নেপথ্যে থাকা সদস্যদের নাম প্রকাশ যাতে না করায় হয় সেজন্য ওই ছাত্রকে ছাড়িয়ে নিতে বারবার আশ্বাস দেয়া হয়। তবে শেষতক ওই ছাত্রকে ৬ মাসের কারাদণ্ড দিলে জালিয়াত চক্রের সদস্যরা সেখান থেকে সটকে পড়েন বলে জানা গেছে। এতে জাবিতে ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াত চক্রের নেপথ্যের কুশীলবরা আবারও ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে গেল। এর আগেও জাবিতে জালিয়াতির একাধিক অভিযোগ থাকলেও চক্রের সদস্যরা ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে গেছেন। এব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টোরিয়াল বডি তথা প্রশাসনের নিষ্ক্রীয়তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

এদিকে ওই প্রক্সিদাতা শিক্ষার্থীকে কারা ছাড়িয়ে নিতে চেয়েছিল তাদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানানো হয়েছে। তারা এমন সাহস পেল কোথায় বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্তেরও দাবি উঠেছে।

জানা যায়, রোববার ১৫ অক্টোবর জাবির বি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রথম শিফট চলাকালে বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ভবনের ১নং কক্ষ থেকে রাকিবুল হাসান নামের এক জালিয়াত চক্রের সদস্যকে আটক করা হয়। আটক রাকিবুল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী।

পরীক্ষা চলাকালে দায়িত্বরত শিক্ষক রাকিবুলের এডমিট কার্ডের ছবিতে গড়মিল দেখতে পেলে তাকে আটক করে প্রক্টরিয়াল টিমের হাতে তুলে দেয়া হয়। পরে প্রক্টরিয়াল টিম টিএসসির একটি কক্ষে তাকে আটক করে রাখে।

প্রক্টরিয়াল টিমের জিম্মায় থাকা সত্ত্বেও রাকিবুলের সাথে দেখা করে জালিয়াত চক্রের অন্য সদস্য আক্তারুজ্জামান হিরণ তাকে ছাড়িয়ে নেওয়ার আশ্বাস দেন। পরবর্তীতে প্রক্টরিয়াল টিম বিষয়টি টের পেলে একজন গার্ডকে রুমের বাইরে পাহারায় রাখে।

এসব বিষয় নিয়ে দেনদরবার শেষে অবশেষে ওই ছাত্রকে কারাদণ্ড দেয় ভ্রাম্যমান আদালত। এ ঘটনায় প্রক্টরিয়াল টিমের দায়িত্ব পালন নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এর আগেও প্রক্টরিয়াল টিমের অদক্ষতার কারণে জালিয়াত চক্রকে আটক করার পরও পালিয়ে যায়। এছাড়াও গত কয়েক বছরে ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে কয়েকজনকে আটক করা হলেও মূল হোতারা রয়ে গেছে ধরাছোয়ার বাইরে।

এ বিষয়ে জানতে সহকারী প্রক্টর মাহবুবুল মোর্শেদকে বারবার ফোন করেও পাওয়া যায়নি। পরে এক সাংবাদিকের মুঠোফোন ধরলেও “এখন ব্যস্ত আছি” বলে ফোন কেটে দেন।


ঢাকা, ১৬ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//জেএন

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।