মেয়ের বান্ধবীর সঙ্গে আপত্তিকর শিক্ষক, নেশা করিয়ে ধর্ষণ!


Published: 2017-09-08 12:53:32 BdST, Updated: 2017-09-24 12:42:32 BdST

লালমনিরহাট লাইভ : মেয়ের বান্ধবীর সঙ্গে প্রেমের নাটক করে কলেজছাত্রীর সর্বনাশ করে দিয়েছেন এক শিক্ষক। একদিকে কলেজ শিক্ষক, অন্যদিকে বান্ধবীর বাবা হওয়ায় পরম বিশ্বাসে ওই ছাত্রী শিক্ষক রেজাউল করিমকে সবকিছু সপে দিয়েছিলেন। একপর্যায়ে তারা বিয়েও করেছেন। কিন্তু যখনই নববধূর সাঁজে স্বামীর বাড়িতে এসেছেন তখনই ঘটেছে বিপত্তি। মারধর করে বের করে দেয়া হয়েছে ওই ছাত্রীকে।

ওই ছাত্রীটির এখন আশ্রয় হয়েছে স্থানীয় এক মহিলা জনপ্রতিনিধির বাড়িতে। সেখানে প্রায় ১৭ দিন ধরেই অবস্থান করছে পিতৃহীন অসহায় পরিবারের ওই কলেজছাত্রী। বিনিময়ে রফদফার নামে দাম-দর হাঁকিয়ে চলেছেন ওই শিক্ষকের লোকজন। কিন্তু শরীরের ওজনেও টাকা দিলেও তা মানতে নারাজ মেয়েটি। দাবি শুধু স্বামীকে পেয়ে ঘর-সংসার করার। ঘটনাটি ঘটেছে লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বাউড়া এলাকায়।

জানা গেছে, বাউড়া পুনম চাঁদ ভুতোরিয়া কলেজ এইচএসসিতে পড়ার সময় ওই ছাত্রীর ওপর নজর পড়ে কলেজের কম্পিউটার শিক্ষক রেজাউল করিমের। এরপর থেকে স্থানীয় নবীনগর গ্রামের বাসিন্দা রেজাউল কলেজ ছাত্রীকে বাগে আনার জন্য বিভিন্ন রকম ছলনার আশ্রয় নেয়।

কলেজ ছাত্রী বলেন, আমি তার মেয়ের বান্ধবী হওয়ার কারণে প্রথম প্রথম আমাকে আম্মু বলেই সম্বোধন করে রেজাউল। এভাবে কাছে ঘেঁষার সুযোগ করে নিয়ে এক পর্যায়ে- ‘তোমাকে একটা গোপন কথা বলতে চাই, দীর্ঘদিন ধরে বলি বলি করে বলা হয় না’ এমন নানা কথা বলতে থাকে রেজাউল। একপর্যায়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে। এইচএসসি পাসের পর ওই ছাত্রী রংপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির কোচিং করতে গেলে সেখানেও তার পিছু নেয় রেজাউল। এক পর্যায়ে চা পান করানোর কথা বলে রংপুরের এক আবাসিক হোটেল নেশা করিয়ে ধর্ষণ করা হয়। পরে চলতি বছর ২০ আগস্ট নোটারি পাবলিক কার্যালয়, রংপুরে হলফনামার মাধ্যমে ৫ লক্ষ টাকায় বিয়ের কাবিন করেন রেজাউল।


ঢাকা, ০৭ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//জেএন

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।