ইবি শিক্ষার্থীর ‘স্মার্ট ইনটেলিজেন্ট হোম’ আবিষ্কার


Published: 2017-04-30 20:32:49 BdST, Updated: 2017-11-20 11:31:51 BdST



ইবি লাইভ: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) ফলিত পদার্থ বিজ্ঞান, ইলেক্ট্রনিক্স, অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০০৯-২০১০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী নিয়াজ মোস্তাকিম ‘‘ইনটেলিজেন্ট স্মার্ট অ্যান্ড ভার্সেটাইল হোম সিকিউরিটি সিস্টেম’’ আবিষ্কার করেন।

আজ রবিবার দুপুর ১ টায় প্রেস কর্ণারে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সাংবাদিকদের কাছে আবিষ্কারের বিষয়টি উপস্থাপন করেন।

নিয়াজ মোস্তাকিম দীর্ঘ ২ বছর যাবৎ বিভাগীয় অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর মো: খালিদ হোসেন জুয়েল ও প্রফেসর মো: খলিলুর রহমানের তত্ত্বাবধনে ‘ইনটেলিজেন্ট স্মার্ট অ্যান্ড ভার্সেটাইল হোম সিকিউরিটি সিস্টেম’ আবিষ্কার করেন।

সংবাদ সম্মেলনে মোস্তাকিম বলেন, আধুনিক সিকিউরিটি ও সব সুযোগ সুবিধার সমন্বয়ে স্মার্ট ইনটেলিজেন্ট হোম এর বাউন্ডারী লাইনে একটা কি পেড আনলকড সিকিাউরিটি গেট সিস্টেম আছে। এটি কি পেড এর মাধ্যমে পাসওয়ার্ড দিয়ে খুলতে হবে। এর সামনে একেটা ডিসপ্লে আছে এবং ইনডিকেটর লাইট আছে। দরজার সামনে কোন ব্যাক্তি আসলে সেন্সর এর মাধ্যমে অটো ক্যামেরা অন হবে। বাড়ির মালিক ভিতর থেকে সবকিছু দেখতে পাবে । ইচ্ছা অনুযায়ী বাড়ির মালিক অ্যান্ডোয়েট এপ্লিকেশন এর মাধ্যমে ঐ ব্যাক্তিকে প্রবেশের অনুমতি দিতেও পারে নাও পারে।

বাড়ির ভেতরে প্রবেশের পর বিভিন্ন কক্ষে প্রবেশ করলে হিউম্যান কাউন্টারের মাধ্যমে কতজন লোক ভেতরে প্রবেশ করল তা ডিসপ্লেতে দেখাবে এবং প্রবেশের পর সংক্রিয়ভাবে কক্ষের লাইট জ্বলে উঠবে। আবার কক্ষ থেকে সকলে বের হলে কক্ষের লাইট অটো বন্ধ হয়ে যাবে।

এছাড়া ভেতরে পিআইআর নামে একটি মোসন সেন্সর রয়েছে যা কোন ব্যাক্তি প্রবেশ করলে সরাসরি ভিডিও রেকোর্ডিং এর মাধ্যমে সে তথ্য ফেইসবুক ও স্কাইপের মাধ্যমে মালিকের নিকট পৌঁছে দেবে।

রান্না ঘরের নিরাপত্তা হিসেবে বাড়িটিতে ব্যাবহার করা হয়েছে ফ্লামা সেন্সর যা ফায়ার সার্ভিসের নম্বরে এসএমএসের মাধ্যমে বাড়ির ঠিকানা জানাবে। গ্যাস সেন্সরের মাধ্যমে মালিককের ফোনে অডিও কল দিয়ে জানাবে এবং স্মোক সেন্সর যা এসএমএসের মাধ্যমে মালিককে জানাবে।

ঘরের বিছানাতে বসেই লাইট, ফ্যান, এসি, কম্পিউটার চালু ও বন্ধ করাসহ নানা প্রযুক্তি রয়েছে এ বাড়িটিতে। এছাড়া ওয়াটার সেন্সরের ফলে বৃষ্টি হলে ঘরের দরজা ও জানালা একাই বন্ধ হয়ে যাবে এবং ফেইসবুকে পোস্ট দেবে বলে দাবি আবিষ্কারকের।

এ ছাড়া বাড়ির কোন সদস্য বিপদে পড়লে রয়েছে ইমারজেন্সি সংকেত যার মাধ্যমে প্রতিবেশীকে ডাকা যাবে, দূর থেকে বাড়ির কোন ডিভাইসকে নিয়ন্ত্রনের জন্য ব্যাবহার করা হয়েছে জিএসএম মডিউল যার মাধ্যমে এসি, ফ্যান, হিটার, চালু ও বন্ধ করা যাবে এবং বন্ধ বা চালু সম্পন্ন হলে মালিককে তা এসএমএসের মাধ্যমে জানাবে।

আরো রয়েছে এসএমএসের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রনকৃত লকার, যা ম্যসেজ দিয়ে চালু ও বন্ধ করা যায়। এর সামনে  কেউ আসলে আই সেন্সরের মাধ্যমে তার ছবি ফেইসবুকে পোস্ট করবে এবং মালিক তাকে সনাক্ত করতে পারবে। এছাড়া রয়েছে ওয়াইফাই মডিউল ও বায়ুর চাপ পরিমাপের জন্য বায়োমেট্রিক পেশার সেন্সর।  

মোস্তাকিম অনার্সে ১ম শ্রেণিতে ১ম এবং মাস্টার্সেও একই ফল করবে বলে আশা বিভাগের শিক্ষকদের। প্রজেক্টটি তৈরী করতে তার প্রায় ৩৫ হাজার টাকা খরচ হয়েছে বলে জানিয়েছে সে।

মোস্তাকিম নওগাঁ জেলার ধামইরহাট উপজেলার জাহানপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। সে ২০০৯-১০ অনার্স ও ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। এ পদ্ধতিটি বাড়ি ও অফিসসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যাবহার করা যাবে বলে দাবি মোস্তাকিমের।

 

ঢাকা, ৩০ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমএইচ

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।