সবজি বিক্রেতার মেয়ের মেডিকেলে চান্স পাওয়ার গল্প


Published: 2017-10-19 21:55:24 BdST, Updated: 2017-11-20 19:15:14 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: বাবা সবজি বিক্রি করে সংসার চালান। মা গৃহিনী। তাদের ঘরে অভাব-অনটন লেগেই আছে। এমন ঘরে থেকেও এবার মেডিকেলে চান্স পেয়েছেন রিমা আক্তার। 

প্রবল ইচ্ছা শক্তি ও অদম্য মেধার স্ফুরণে ওই ছাত্রী এমন সফলতা দেখিয়েছেন। প্রতিকূলতাকে জয় করে ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন পূরণের পথে হাঁটছেন তিনি। তবে অভাবের কারণে তার স্বপ্নগুলো ফিকে হয়ে আসছে। 

জানা গেছে, কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার এগারসিন্দুর ইউনিয়নের দক্ষিণ খামা গ্রামে দরিদ্র কৃষক পরিবারে তার জন্ম রিমার। ৬ বোন ও ১ ভাইয়ের সংসারে তিনি তৃতীয়। তার বাবা আলাউদ্দিন স্থানীয় মঠখোলা বাজারে খোলা রাস্তায় সবজি বিক্রি করে ও কৃষি কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। মা গৃহিনী। ধার দেনা ও অক্লান্ত পরিশ্রমে ছেলেমেয়েদেরকে পড়াশোনা চলছে। 

অদম্য জীবন সংগ্রামের মাঝেও রিমা ৫ম ও ৮ম শ্রেণিতে বৃত্তি লাভ করেন। আসিয়া বারী আদর্শ বিদ্যালয় থেকে ২০১৪ সালে জিপিএ-৫  ও ২০১৬ সালে হাজী জাফর আলী কলেজ, মঠখোলা থেকে জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হন। 

অদম্য রিমা জানান, সকলের সহযোগিতায় চিকিৎসক হতে পারলে সমাজের হত দরিদ্র অসহায় মানুষের বিনামূল্যে চিকিৎসা করাবো। তিনি তার সাফল্যের পিছনে পিতা-মাতা ও শিক্ষকদের অবদানের কথা স্বীকার করে বলেন, তাদের সহযোগিতা না পেলে আমি এপর্যন্ত আসতে পারতাম না। 

হাজী জাফর আলী কলেজের ভাইস-প্রিন্সিপাল আবদুল হেলিম বলেন. রিমা ভীষণ পড়ুয়া ও নিয়মিত ক্লাসে উপস্থিত থাকত। অসচ্ছল পরিবারে জন্ম হলেও তার ঈর্ষাণীয় মেধাকে সবসময় আমরা উৎসাহিত করেছি। তবে অর্থাভাবে চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পূরণ নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন মেধাবী রিমার পরিবার। 

রিমার মা হালিমা খাতুন বলেন, বড় পরিবারে কৃষি কাজ করে সংসার চালানোই দায় হয়ে পড়েছে। তারপর ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার খরচ চালাতে গিয়ে সমস্যায় রয়েছি। একারণে তিনি সমাজের বিত্তবানদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

 

ঢাকা, ১৯ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমএইচ

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।